সংসারের খরচ কমানোর জন্য নিয়মিত এই টিপসগুলো মেনে চলুন

আয় বুঝে ব্যয় কর। ছোট বেলা থেকেই এই প্রবাদটি আমরা শুনে আসছি। তবে বাস্তবে এই কথাটি বাস্তবায়ন করা বড়ই কঠিন। বিশেষ করে মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্ত সংসারের মানুষদের জন্যতো খরচ কমানোটা বড়ই কষ্টসাধ্য। পৃথিবীর বিখ্যাত ধনী ওয়ারেন বাফেট সবসময় বলতেন, “ব্যয় করার পর যা থাকে তা সঞ্চয় করো না বরং সঞ্চয় করার পর যা থাকে তা ব্যয় করো”। সংসারের খরচ কমাতে না পারলে ভবিষ্যতের জন্য অর্থ সঞ্চয় করা অত্যন্ত দুঃসাধ্য ব্যাপার।

প্রতিবারই নতুন বছর আসলে হয়তো খাতা কলম নিয়ে বসে পড়েন কিভাবে খরচ কমাবেন তার উপায় বের করতে। কিন্তু বাস্তবে দেখা যায়, বছর শেষে আপনি তেমন কোন খরচই কমাতে পারেননি। আসলে সংসারের খরচ কমানোর জন্য প্রথমেই প্রয়োজন একটি সঠিক পরিকল্পনা। সংসারের কোন কোন খাতে সবচেয়ে বেশি খরচ হচ্ছে, কোন খাতে অতিরিক্ত খরচ হচ্ছে এসব বিষয়গুলো খুঁজে বের করে প্রথমে তা নোট করুন। এরপর কোন খাত থেকে কেমন খরচ কমানো যায় তা চিন্তা করুন। এবং সে অনুযায়ী আগামী তিন মাসের কর্ম পরিকল্পনা ঠিক করুন। তিন মাস পর আবার বসুন। মিলিয়ে দেখুন আপনি যে প্ল্যানিং করেছিলেন তা কতটুকু বাস্তবায়িত হলো। আবার পরবর্তী তিন মাসের জন্য পরিকল্পনা করুন। এভাবে আপনি খুব সহজেই সংসারের খরচ অনেকাংশেই কমিয়ে আনতে পারবেন। তবে আজকে আমি আপনাদের সাথে কিছু বিশেষ টিপস শেয়ার করবো যা আপনার সংসারের খরচ কমাতে অনেক সাহায্য করবে। চলুন জেনে নিই টিপস গুলো:

সংসারের খরচ কমাতে কিছু টিপস

খরচের হিসেব রাখুন:

প্রতিদিন কোথায় কত খরচ হল তার হিসেব একটা খাতায় লিখে রাখুন। মাস শেষে সেটি নিয়ে বসুন। এবার দেখুন কোন কোন খাতে খরচ বেশী হয়েছে এবং সেগুলো একটু চেষ্টা করলেই কমানো সম্ভব কিনা! যদি সম্ভব হয় তবে পরবর্তী মাসেই সে দিকে নজর দিন। এর ফলে অনেক আজেবাজে খরচই কমিয়ে ফেলা সম্ভব।

ক্রেডিট কার্ডের ব্যবহার কমানো:

ক্রেডিট কার্ডটা যতটা সম্ভব বাসায় ভুল করে রেখে শপিং করতে যান। কথাটা শুনতে একটু হাস্যকর ও অদ্ভুত মনে হলেও এ টিপসটি কিন্তু অত্যন্ত কার্যকর। ক্যাশ ব্যবহার করুন। এতে চাইলেও আপনি যথেষ্ট টাকা খরচ করতে পারবেন না। দেখবেন এভাবে আপনার অনেক টাকা বেঁচে গেছে। বিশ্বাস না হলে কিছুদিন চেষ্টা করে দেখুন।

ব্র্যান্ডিং প্রবণতা ত্যাগ করুন:

বন্ধু বান্ধবের পাল্লায় পড়ে অযথা ব্র্যান্ডিং প্রবণতায় ভুগবেন না। আপনাকে ভালো মানায় এমন পোশাক বা এক্সেসরিজ ব্যবহার করুন। এভাবেও কিন্তু আপনি ট্রেন্ডি হয়ে উঠতে পারেন। অযথা দাম দিয়ে ব্র্যান্ড এর পোশাক সব সময় পরার চেয়ে কিছু ব্র্যান্ডেড পোশাক কিনে রাখুন বিশেষ উপলক্ষে পরার জন্যে। এতে আপনার অর্থ ও স্ট্যাটাস দুটোই রক্ষা পাবে।

সেভিংস স্কীম খুলুন:

ব্যাংকে সেভিংস স্কীম অবশ্যই খুলে ফেলুন। মাসিক হারে যতটুকুই সম্ভব যেটা আপনি কোনো রকম চাপ না নিয়ে জমাতে পারেন এরকম হারে ৩-১০ বছর মেয়াদী সেভিংস একাউন্ট খুলুন। এতে আপনি কয়েক বছর পরে ভালো অংকের একটা টাকা জমিয়ে ফেলতে পারেন।

ইন্সুরেন্স করুন:

একটা ভালো কোম্পানীতে ইন্সুরেন্স করে রাখুন। এতে কোন অনাকাঙ্খিত দুর্ঘটনায় আপনার অর্থনৈতিক সমস্যা মোকাবেলা করতে পারবেন সহজেই। আর সেই সাথে টাকাটা তো জমলই।

ছাড়ের সময় পণ্য কিনুন:

অলংকার বা অন্যান্য পণ্যের দামে বছরের বিশেষ কিছু সময়ে ছাড় দেয়া হয়। চেষ্টা করুন সে সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করে পণ্যটি  কেনার। এতে আপনার বেশ কিছু টাকা বেঁছে যাবে।

ঘরের পানি, গ্যাস ও বিদ্যুত অপচয় রোধ করুন:

দরকার না হলে ঘরের পানির ট্যাপ, চুলা ও ইলেক্ট্রনিক জিনিসপত্রের লাইন অফ করে রাখুন। বিল কম আসবে। ইলেকট্রিসিটি না থাকলে মোমের বদলে চার্জার লাইট ব্যবহার করুন। মোমের গলে যাওয়া অংশগুলো জমিয়ে রাখতে পারেন। গলিয়ে মাঝখানে সুতো দিয়ে আবার মোম বানাতে পারবেন। বিষয়গুলো হয়তো অনেক সূক্ষ। কিন্তু এ থেকে আপনার মধ্যে খরচ কমানোর একটি অভ্যাস জেগে উঠবে।

আজকের এই পোস্টে আপনাদের সাথে সংসারের খরচ কমানোর কিছু আইডিয়া শেয়ার করার চেষ্টা করেছি। আপনি যদি আপনার দৈনন্দিন জীবনে এই টিপসগুলো মেনে চলতে পারেন তবে এক সময় দেখবেন আপনার অনেক খরচই কমে গেছে। পাশাপাশি নিয়মিত সঞ্চয়ের অভ্যাস গড়ে তুলুন। এতে করে আপনার টাকাটা আজেবাজে খরচে নষ্ট হবে না বরং আপনার ভবিষ্যত এবং সন্তানের ভবিষ্যতের জন্য তা অনেক কাজে লাগবে।

আশা করছি আজকের টিপসগুলো আপনাদের ভালো লেগেছে। সংসারের খরচ কমানোর উপায় বিষয়ে আপনাদের কোন জিজ্ঞাসা কিংবা মতামত থাকলে আমাদের কমেন্ট করে জানানোর অনুরোধ থাকলো। আজকে এখানে বিদায় নিচ্ছি। সবাই ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন। আর অবশ্যই আপন বার্তার সাথে থাকবেন।

Cut your coat according to your cloth. From the very beginning we heard this word. But in reality it is very difficult to implement this word. Especially for the middle-class and low-income people, the cost reduction is very difficult. The world’s wealthiest Warren Buffett always used to say, “Do not save what remain after spending, but spend what remain after the savings”. It is extremely difficult to save money for the future if you can not reduce the cost of the family. Today I will share some special tips with you that will help you to reduce the cost of your family.

 

Comments

comments

Share This Post

Post Comment