ঘুরে আসুন সাভারের ফ্যান্টাসি কিংডম, স্বপ্নপুরীর এক জগত

কৃত্রিমভাবে বাংলাদেশে যে কয়েকটি বিনোদন স্পট তৈরী করা হয়েছে এর মধ্যে অন্যতম হলো সাভারের আশুলিয়ায় প্রায় ২০ একর জায়গা নিয়ে অবস্থিত ফ্যান্টাসি কিংডম। প্রিয়জন কিংবা পরিবারের সবাইকে নিয়ে কিছু সময় স্বপ্নপুরীর জগতে হারিয়ে যেতে চাইলে Fantasy Kingdom হতে পারে আপনার জন্য সেরা একটি জায়গা। আজকের এই আর্টিকেলে আমি আপনাদের সাথে ফ্যান্টাসি কিংডম সম্পর্কিত সকল বিষয় বিস্তারিত তুলে ধরবো। জানাবো ফ্যান্টাসি কিংডম সম্পর্কিত কিছু প্রয়োজনীয় তথ্য।

Fantasy kingdom front side
ফ্যান্টাসি কিংডমের মূল অংশে প্রবেশের সদর দরজা

 

ফ্যান্টাসি কিংডম (Fantasy Kingdom), ঢাকার অদূরে সাভারের আশুলিয়া থানার ঢাকা-আশুলিয়া মহাসড়কের পাশে জামগড়া এলাকায় পার্কটি অবস্থিত। বর্তমান সময়ে বেশ জনপ্রিয় এই বিনোদন কেন্দ্রটি। বিশাল এলাকা নিয়ে তৈরী করা হয়েছে এই পার্কটিকে। ফ্যান্টাসি কিংডমের নির্মাণ ও তত্ত্বাবধান করছে কনকর্ড এন্টারটেইনমেন্ট কোম্পানি লিমিটেড। মূলত কৃত্রিমভাবে তৈরী করা হলেও ভেতরে যে যথেষ্টে পরিমাণ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ধরে রাখার চেষ্টা রয়েছে তা প্রবেশ করলেই বুজা যায়। বেশ কয়েকটি বড় বড় ফুল বাগান, নানা রকম গাছগাছালির সমাহার, ঝরণা, লেক দেখে আপনাকে মানতেই হবে যে প্রাকৃতিকতা ধরে রাখতে চেষ্টার কোন কমতি রাখে নি কর্তৃপক্ষ।

ফ্যান্টাসি কিংডম সম্পর্কে একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় অনেকেই জানে না। সেটা হলো ফ্যান্টাসি কিংডম মূলত এই বিনোদন কেন্দ্রের এক অংশের নাম। এখানে এছাড়াও আরো বেশি কিছু বিনোদন রাজ্য রয়েছে। যেমন: ওয়াটার কিংডম, এক্সট্রিম রেসিং, হেরিটেজ কর্ণার এবং রিসোর্ট আটলান্টিস।

ওয়াটার কিংডম: যারা পানি পছন্দ করেন তাদের জন্যই এই পানির রাজ্য তৈরী করা হয়েছে। ওয়াটার কিংডমে প্রবেশ করতে হলে আপনাকে আলাদা টিকেট সংগ্রহ করতে হবে। ওয়াটার কিংডমে রয়েছে কৃত্রিম সমুদ্র সৈকত, অনেক উঁচু স্থান থেকে আঁকা বাঁকা পথ পেরিয়ে জলভর্তি পুলে পড়ার জন্য স্লাইড ওয়ার্ল্ড, টিউব স্লাইড। এ ছাড়ও রয়েছে লেজি রিভার, ওয়াটার ফল, ডুম স্লাইড, লস্ট কিংডম, প্লে জোন, ডেন্সিং জোনের মতো মজার মজার সব রাইড। পানিতে নামার ইচ্ছা থাকলে আসার সময় বাড়তি জামা কাপড় সাথে নেয়া ভালো। এখানে চেঞ্জ রুম রয়েছে। তবে পানিতে একসাথে অনেক মানুষ নামে তাই অবশ্যই শালীনতা এবং সেফটি বজায় রেখে নামা উচিত।

water kingdom ওয়াটার কিংডম
ওয়াটার কিংডমের একটি রাইড

হেরিটেজ কর্ণার: ফ্যান্টাসি কিংডমের আরেকটি অন্যতম দিক হলো এখানে রয়েছে একটি হেরিটেজ কর্ণার। এই হেরিটেজ কর্ণারে মূলত বাংলাদেশের কিছু ঐতিহাসিক স্থাপনার মডেল রাখা হয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম হলো বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ, শহীদ মিনার, আহসান মঞ্জিল, ষাট গম্বুজ মসজিদ, কান্তাজীর মন্দির, মহাস্থানগড়। এছাড়াও আরো কয়েকিট স্থাপনার মডেল রয়েছে সেখানে।

ahsan manjil আহসান মঞ্জিল
আহসান মঞ্জিলের মডেল

এক্সট্রিম রেসিং: যারা রেসিং খুব পছন্দ করেন তাদের জন্য ফ্যান্টাসি কিংডমে এক্সট্রিম রেসিং নামে একটি আলাদা কর্ণার রয়েছে। এই রেসিং কর্ণারটিকে ওয়ার্ল্ড ক্লাস মান দিয়ে তৈরী করা হয়েছে।

রিসোর্ট আটলান্টিস: রিসোর্ট আটলান্টিস মূলত তৈরী করা হয়েছে তাদের জন্য যারা কয়েকদিন সময় নিয়ে অবকাশ যাপন করতে চায়। আন্তর্জাতিক তিন তারকা মানের হোটেল রয়েছে সাথে রয়েছে আপনার সময় গুলো আনন্দের সাথে কাটানোর জন্য বিভিন্ন ব্যবস্থা। ঘুরে দেখতে পারেন পুরো রিসোর্ট এলাকাটি সাথে উপভোগ করে নিতে পারেন মজার মজার সব রাইড।

fantasy kingdom inside
ফ্যান্টাসি কিংডমের মূল অংশে প্রবেশ করার পরই এই দৃশ্যটি দেখা যাবে

এবার চলুন জেনে নেই কি কি রাইড রয়েছে এই বিনোদন কেন্দ্রটিতে।

রাইডসমূহ: ফ্যান্টাসি কিংডমে মূলত আধুনিক ও ওয়ার্ল্ড ক্লাস সব রাইড রাখার চেষ্টা করা হয়েছে। ফ্যান্টাসি কিংডমে যে সকল রাইড গুলো রয়েছে সেগুলো হলো: Bumper Car, Zuzu Train, Whirly Bird, Highway Convoy, Giant Splash, Happy Kangaroo, Izzy Dizzy, Sun & Moon, 3D Cinema, Bull Dozer, Santa Maria, Kids’ Bumper Car, Magic Carpet, Pony Adventure, Roller Coaster, Speed Way, Vortex Tunnel, Sky Hopper, Bumper Boat, Zip Around, Igloo House, Moving Tower, Ferris Wheel, Junior Ferris Wheel, Redemption Game ইত্যাদি।  এছাড়াও ওয়াটার কিংডমে যে রাইডগুলো আছে তা হলো: Slide World, Family Pool, Wave Pool, Tube Slides, Multi Slide, Lazy River, Dancing Zone ইত্যাদি। ফ্যান্টাসি কিংডমের সবগুলো রাইড নিয়ে যদি লিখি তাহলে পোস্টটা অনেক বড় হয়ে যাবে। আসলে নিজে না উপভোগ করা পর্যন্ত রাইডগুলো সম্পর্কে লিখে কখনো বুজানো যাবে না। তারপরও রাইডগুলো নিয়ে করা কয়েকটি ভিডিও এই পোস্টটির একদম নিছে দিয়ে দিলাম।

roller coaster রোলার কোস্টার
রোলার কোস্টার রাইড

এছাড়াও ফ্যান্টাসি কিংডমে বাচ্চাদের জন্য রাখা হয়েছে একটি গেম কর্ণার। এখানে বাচ্চারা ভার্চুয়াল রিয়েলিটির জগতে হারিয়ে যেতে পারবে। সবগুলো গেমই খেলতে হবে বাস্তব পরিবেশের মতো নিজের শরীর ব্যবহার করেই। যারা গেম পছন্দ করে তাদের জন্য অসাধারণ একটি কর্ণার হলো এটি।

 

যেভাবে আসবেন: ফ্যান্টাসি কিংডমে আশার বেশকিছু রাস্তা আছে। সবচেয়ে সহজ হলো আপনারা যদি ঢাকার মিরপুর-১০ থেকে আসেন তাহলে সেখানে কয়েকটি বাস রয়েছে যেগুলো মিরপুর বেড়িবাঁধ হয়ে একদম ফ্যান্টাসি কিংডমের সামনে দিয়ে যায়। আমি মিরপুর-১০ থেকে আলিফ পরিবহনের একটি বাসে করেই গিয়েছিলাম। রাস্তায় জ্যাম না থাকলে মাত্র ১ থেকে দেড় ঘন্টার মধ্যে পৌঁছে যাবেন। এছাড়াও ঢাকার অন্য যে কেন জায়গা থেকে আসতে চাইলে আগে আপনাকে সরাসরি সাভার বাইপাইল এসে নামতে হবে। এরপর এখান থেকে ফ্যান্টাসি কিংডমের দিকে যাওয়া যে কোন বাসে উঠতে পারেন অথবা রিকশা, অটোতেও আসতে পারেন। দশ পনের মিনিটের বেশি লাগবে না। ঢাকার উত্তরা, আবদুল্লাহপুর হয়ে আশুলিয়ার দিকে আসে সেগুলোতে উঠলেও সরাসরি ফ্যান্টাসি কিংডমের সামনে নামতে পারবেন। ঢাকার যে কোন জায়গা থেকেই আসলে জনপ্রতি ভাড়া ৪০ থেক ৬০ টাকার মতো লাগতে পারে।

সময়সূচী: ফ্যান্টাসি কিংডম সপ্তাহের ৭দিনই খোলা থাকে। সাধারণ দিনগুলোতে সকাল ১১টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত আর ছুটির দিনে সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত খোলা থাকে।

টিকেটের মূল্য: ফ্যান্টাসি কিংডমে প্রবেশের জন্য বিভিন্ন মূল্যের প্যাকেজ রয়েছে। এক এক প্যাকেজে এক এক সুবিধা রয়েছে। ফ্যান্টাসি কিংডমের সামনেই বড় ব্যানারে সবগুলো প্যাকেজ সম্পর্কে বিস্তারিত এবং দাম উল্লেখ করা আছে। মাঝে মাঝে ফ্যান্টাসি কিংডম থেকে বিভিন্ন অফার দেয়া হয়। যেখানে অল্প খরচে এন্ট্রি এবং সবগুলো রাইড উপভোগ করার জন্য বিশেষ প্যাকেজ থাকে। তিন ফুটের নিচের বাচ্চাদের জন্য টিকেটের দাম কিছুটা কম রাখা হয়। তিন ফুটের নিচের বাচ্চাদেরকে কিছুটা ভয়ংকর রাইডগুলোতে উঠতেও দেয়া হয় না। আর একদম ছোট বাচ্চাদের জন্য কোন টিকেট সংগ্রহ করতে হয় না।

খাওয়া-দাওয়া: ফ্যান্টাসি কিংডমে খাওয়ার জন্য বেশ কয়েকটি ফাস্ট ফুডের দোকান রয়েছে। তবে এ দোকান গুলোতে খাবারের দাম বাইরে থেকে একটু বেশি নেয়া হয়। এছাড়াও ভেতরে উন্নতমানের কয়েকটি রেস্টুরেন্টও আছে। আর যদি কিছুটা কম দামের মধ্যে ভালো খাবার খেতে চান অথবা পিকনিক করলে অনেকে একসাথে খেতে চান সেক্ষেত্রে ফ্যান্টাসি কিংডমের বাইরে মহাসড়কের দুই পাশে বেশ কয়েকটি ভালো মানের হোটেল রয়েছে। তবে লোকসংখ্যা বেশি হলে অবশ্যই আগে থেকে হোটেল ম্যানেজারের সাথে কথা বলে রাখবেন।

ফ্যান্টাসি কিংডমের বোট রাইড
ছোট ছোট এই বোট গুলো নিয়ে কৃত্রিম লেকে ঘুরতে পারবেন।

আরো কিছু তথ্য: ফ্যান্টাসি কিংডমকে শুধু বিনোদন কেন্দ্র ভাবলে আপনার ভুল হবে। এখানে রয়েছে একটি কনভেনশন সেন্টার। আপনি চাইলে কর্পোরেট পিকনিক, সংবর্ধনা অনুষ্ঠান, পার্টি, পুনর্মিলনী থেকে শুরু করে যে কোন অনুষ্ঠান আয়োজন করার জন্য ভাড়া নিতে পারেন। ফ্যান্টাসি কিংডমে রয়েছে গাড়ি পার্কিং করার সুবিধা। তাই আপনি চাইলে নিজের গাড়ি নিয়েও আসতে পারেন এখানে। বেসরকারী প্রতিষ্ঠান হওয়ায় ম্যানেজমেন্ট অনেক সুন্দর, নেই কোন হকার কিংবা অন্য ঝামেলা।

বন্ধুরা আজকের এই পোস্টে আমি চেষ্টা করেছি ফ্যান্টাসি কিংডম সম্পর্কে খুঁটিনাটি সকল তথ্য আপনাদের জন্য তুলে ধরতে। আশা করছি পোস্টটি আপনাদের ভালো লেগেছে। এই পোস্টটি মূলত আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা ও ফ্যান্ট্যাসি কিংডম কর্তৃপক্ষের বিভিন্ন তথ্য থেকে লেখা। পোস্টটি কেমন লেগেছে আপনার মন্তব্য জানাবেন। ফ্যান্টাসি কিংডম সম্পর্কে আরো কোন তথ্য জানার থাকলে অবশ্যই জানাবেন। চেষ্টা করবো সঠিক তথ্যটি জানিয়ে দেয়ার জন্য।

আজ এখানেই শেষ করছি। নতুন পর্বে নতুন কোন বিনোদন কেন্দ্র কিংবা ভ্রমণ সম্পর্কে লিখবো। সবাই ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ।

Image Source: Official Website of Fantasy Kingdom

চলুন দেখে নিই ফ্যান্টাসি কিংডমের কয়েকটি অসাধারণ রাইড এর ভিডিও:

Comments

comments

Share This Post

Post Comment