খুশকি কেন হয় ও খুশকি থেকে মুক্তির সহজ উপায়

খুশকি খুবই সাধারন একটি সমস্যা। প্রায় প্রত্যেক মানুষের মাথায় জীবনে কোনো না কোনো সময় খুশকি হয়েছে। মাথার ত্বক বা স্ক্যাল্পে সব সময় কিছু নতুন কোষ হয়। আর কিছু পুরনো কোষ ঝরে যায়। এটা একটা চক্র। কিন্তু যখন পুরনো মরা কোষ জমে যায় এবং ফাঙ্গাস সংক্রমিত হয় তখন খুশকি হয়। মাথা থেকে সাদা আঁশের মতো গুঁঁড়া পড়তে থাকে এবং সেই সাথে চুলকানি হয়।

খুশকি সমস্যার সমাধান, খুশকি দূর করার উপায়

খুশকির কারণ:

তেলের ব্যবহার: প্রচুর তেলের ব্যবহার খুশকি হওয়ার একটি অন্যতম কারণ। মাথার ত্বক তেলের কারণে চিটচিটে হয়ে খুশ.কি হয়। আবার তেল ব্যবহার করলে খুশ্কি হয়েছে সেটা বোঝা যায় না।

যথাযথ শ্যাম্পু ব্যবহার না করা: যথাযথ শ্যাম্পু ব্যবহার না করার কারণেও খুশকি হতে পারে। মাথার ত্বক বা স্ক্যাল্প তৈলাক্ত হলেও খুশ্কি হওয়ার প্রবণতা থাকে। কিশোর বা তরুণ বয়সে ব্রণের সাথে খুশকিও একটি স্বাভাবিক সমস্যা। স্ক্যাল্প অত্যাধিক শুষ্ক হলেও খুশ্কি হতে পারে।
কিন্তু ত্বক সমস্যা যেমন সেবোরিক ডার্মাইটিস, সোরিয়াসিস, একজিমা, ফাঙ্গাল ইনফেকশন এবং অন্যান্য ব্যাক্টেরিয়াল ইনফেকশন বা সংক্রমণ খুশকির মতো মনে হতে পারে। মানসিক সমস্যার কারণেও মাথায় খুশ্কি হয়।

খুশকি সমস্যার সমাাধান: প্রথমেই মাথায় তেল ব্যবহার করা বন্ধ করুন। তারপর শ্যাম্পু বদলে ফেলুন। খুশ্কি নাশক শ্যাম্পু ব্যবহার করতে হবে। ডেজ পিটি অর্থাৎ জিংক পাইরিথিওনযুক্ত শ্যাম্পু ব্যবহার করবেন। পরের সপ্তাহে এক দিন করে পরবর্তী এক মাস ব্যবহার করবেন। এতে কোনো উপকার না হলে এক বা দুই শতাংশ কিটোকোনাজলযুক্ত শ্যাম্পুও উপরিওক্ত নিয়মে ব্যবহার করতে হবে।
আর স্ক্যাল্প যদি শুষ্ক প্রকৃতির হয়, তবে শ্যাম্পু করার আগের রাতে অলিভ ওয়েল মাথায় লাগাতে পারেন অথবা শ্যাম্পু করার ২ ঘন্টা পূর্বেও অলিভ ওয়েল লাগাতে পারেন। এরপর ও যদি খুশ্কি সমস্যা থাকে অবশ্যই ভালো কোনো চিকিৎসকের পরামর্শ নিবেন। রোগের কারনে খুশকি হলে তার যথাযথ চিকিৎসা প্রয়োজন।

Dandruff is a very common problem. Almost every human has dandrule at some point in life. Head skin or scalp are some new cells all the time. And some old cells disappear. It’s a cycle. But when old cells die and the fungus gets infected, then it becomes dandruff.

Comments

comments

Share This Post

Post Comment